ডায়বেটিস কিভাবে কমাবেন তা নিয়ে কিছু কথা

আমরা যারা ডায়াবেটিস রোগী আছি।আমরা জানি ডায়াবেটিস পুরোপুরি নিরাময়ের কোন ধরনের কোনো ওষুধ নেই। বাঁচতে হলে আমাদেরকে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে বাঁচতে হবে। ডায়াবেটিস কমানোর কিছু পদ্ধতি, ডায়াবেটিস হলে আপনারা কোন ফল খাবেন কোন ফল খাবেন না আর ডায়াবেটিস হলে আপনারা কি খেতে পারবেন তার কিছু খাদ্য তালিকা দেওয়া হলো আশা করি আপনারা জেনে উপকৃত হবেন।

=)  সূর্যের আলো গায়ে লাগাতে হবে। আমরা আজকাল সূর্যের আলো বা চাঁদের আলোকে গুরুত্ব দেইনা। সকালে ঘুম থেকে উঠে সূর্যের আলোতে হাঁটাহাঁটি করতে হবে। ডায়াবেটিস কমাতে এটি সাহায্য করে।

=) পানি খাবেন ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ বা শরীরের অনেক সমস্যা সমাধান করে এই পানি। তাই পানি খাবেন, পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাবেন।

=) চিনি ছাড়া লিকার চা। ডায়বেটিস রোগীর খাদ্য তালিকা চিনি ছাড়া লিকার চা রাখার চেষ্টা করবেন ডায়াবেটিস কমাতে এটি অনেক সাহায্য করে।

=) তাজা খাবার খান। ফলমূল-শাকসবজি এগুলো তাজা করার চেষ্টা করুন।

=) ৭ থেকে ৯ ঘণ্টা নিরবিচ্ছিন্নভাবে ঘুমাতে হবে। ঘুম না আসলেও ঘুমানোর চেষ্টা করতে হবে। রাতের এ ঘুমটা ডায়াবেটিস কমাতে অনেক সাহায্য করে।

=)চিনি খাওয়া যাবে না এটা আমরা সকলেই জানি। বাড়িতে তৈরি করা পানিয়তে ও চিনি মেশান যাবে না বা বাহির থেকে যে খাবার খাবেন দেখে নিবেন তাতে চিনি আছে কিনা।

=) ব্যাথার মেডিসিন কম খেতে হবে। ব্যথা না হলেও আজকাল আমরা অনেকে ব্যথার ওষুধ খেয়ে থাকি।একটু ব্যাথা হলে ব্যাথা সহ্য করার অভ্যাস করতে হবে। খুব বেশি ব্যাথা না করলে ব্যাথার ওষুধ খাওয়া যাবে না।

=) বাদামী চাল বা ঢেঁকিছাটা চাল এর রুটি না ভাত খাওয়ার চেষ্টা করবেন তবে সেটা অল্প পরিমাণে খুব বেশি খাবেন না। ভাত বা রুটি যত কম খাওয়া যায় ততই ভালো তবে যারা ডায়াবেটিস রোগী যদি ভাত বা রুটি খাওয়া ছাড়া থাকতে পারবেন না এরকম যদি হয় তাহলে বাদামী চাল বা ঢেঁকিছাটা চালের রুটি ভাত খাবেন যেটা বাজারে ব্রাউন রাইস নামে পরিচিত। ডায়াবেটিস কমাতে বাদামী চাল বা ব্রাউন রাইস সাহায্য করে।

=) মদ পান করবেন না। মদ পান করা সুস্থ শরীরের জন্যও খুব ক্ষতিকর। তবে আপনি যদি হন

 ডায়াবেটিসের রোগী তাহলে মদ পান করা চলবে না।

=) সবুজ শাকসবজি খাবেন। যারা ডায়াবেটিস এর রোগী তাদের জন্য শাকসবজি খাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শাক সবজি ডায়বেটিস কমাতে অনেক সাহায্য করে।

=) বাদাম খাবেন। ডায়বেটিস কমাতে বাদাম অনেক সাহায্য করে। তবে খুব বেশি পরিমাণে খাবেন না অল্প পরিমাণে খাবেন।

=) নিরাপদ খাবার খান। নিরাপদ খাবার খাওয়ার চেষ্টা করবেন বাসি খাবার খাবেন না যেখানে আপনার খবার তৈরি হচ্ছে মানে রান্নাঘরে রান্নাঘর  পরিষ্কার আছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখুন আমরা অনেকেই সেদিকে কোন খেয়াল রাখি না তবে  সেদিকে নজর রাখতে হবে। নিজের হাত ভালোভাবে পরিষ্কার রাখতে হবে।

=) সালাত খাবেন,ভাত রুটি ভারী খাবার খাবেন কিন্তু সালাত খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

যারা ডায়াবেটিস রোগী তাদের প্রচুর পরিমাণে খিদা লাগে ।আপনারা একসাথে বেশি পরিমাণে খাবেন না। প্রয়োজনে অল্প অল্প করে কিছুক্ষণ পরপর খাবেন। একসাথে খাবেন না একসাথে বেশি খাবার খেলে ওজন বাড়ে। ওজন বাড়ার সাথে ডায়াবেটিস রোগীর সম্পর্ক রয়েছে কারণ আপনার শরীরের ওজন যদি বেড়ে যায়  তাহলে ডায়াবেটিস বেড়ে যাবে।

আপনারা যারা ডায়াবেটিস রোগী আছেন কী খাবেন কী খাবেন না সে নিয়ে অনেক চিন্তায় থাকেন। এখন আমরা জানবো ডায়াবেটিস হলে আপনারা যে ফলগুলো খেতে পারবেন বা যে ফলগুলো ডায়বেটিস রোগীর জন্যও উপকারী-

  • বেদানা
  • আপেল
  • জাম
  • পেয়ারা পাকা হোক বা কাঁচা। 
  • কমলা লেবু
  • পাকা পেঁপে 
  • আমলকি

আমরা জানবো ডায়াবেটিস রোগীরা যে ফলগুলো খেতে পারবে না-

  • খেজুর
  • আনারস
  • তরমুজ 
  • পাকা আম
  • কলা

এই যে ফলগুলো আছে এগুলো খেলে অনেক উপকার আছে তবে এগুলোতে সুগারের মাত্রা বেশি থাকায় এগুলো ডায়বেটিস রোগীর  উপকার করলেও ফলে থাকা চিনির মাত্রা এতটাই বেশি যে শরীরের উপকারটাকে নষ্ট করে দিতে সক্ষম। তাই না খাওয়াই ভালো।

ডায়াবেটিস রোগীরা যেসব খেতে পারবেন তাদের মধ্যে কিছু হল-

  • শাকসবজি খাবেন।
  • পরিমাণ মতো বাদাসি চালের ভাত বা রুটি খাবেন।
  • সব ধরনের ডাল খেতে পারবেন।
  • ডিমের সাদা অংশ টা খাবেন।
  • সব ধরনের মাছ খেতে পারবেন।
  • ডাবল টোনড দুধ খাবেন
  • ডাবল টোনড দই খাবেন
  • ওটস খেতে পারবেন
  • ডালিয়ার খিচুড়ি সবজি খেতে পরবেন।

যারা ডায়াবেটিসের রোগী তারা একদমই তেলে ভাজা খাবার খাবেন না, ময়দা দিয়ে তৈরি এরকম খাবার খাওয়া বন্ধ করতে হবে, যে খাবারের চিনি আছে ওগুলো খাওয়া যাবেনা।

Comments

You must be logged in to post a comment.

লেখক সম্পর্কেঃ

I am article Writer