মাথা ব্যাথা ,ডিপ্রেশন এর বিভিন্ন কারন ও‌ উপায়।

মাথা ব্যথা বা ডিপ্রেশনে থাকা মানুষদের জন্য তার স্বাভাবিক জীবন নানাভাবে ব্যাহত হয়ে থাকে। বর্তমানে একে আমাদের সকলের জন্য একটি গুরুতর বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা নানাভাবে মাথা ব্যথায় আক্রান্ত বা ডিপ্রেশনে  ভুগতে পারে। এটির জন্য রয়েছে নানা ধরনের উপায় ও সমাধান যার মাধ্যমে আমরা মাথা ব্যথা বা ডিপ্রেশন এর মত সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারি।

বর্তমানে বিশ্বে একশত মানুষের মধ্যে ৭৮ শতাংশ মানুষই ডিপ্রেশন বা মাথাব্যথার মত সমস্যায় ভুগছে । সমস্যা সমাধানের জন্য বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের কমিউনিটিত চলছে মাথা ব্যথা বা ডিপ্রেশন এর মত বিভিন্ন ধরনের কাজ নিয়ে আলোচনা ও তার থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় নিয়ে গবেষণা।

এটি বর্তমান বিশ্বে এমন একটি রূপ ধারণ করেছে যেই ডিপ্রেশনের জন্য মানুষ সুইসাইডের মত ও অন্যান্য খারাপ অপকর্মে নিয়োজিত হচ্ছে।

এখন টিভি, খবরের কাগজ, পত্রিকায় প্রায়ই এ ধরণের সংবাদ শোনা যায় সে কোন ব্যক্তি অতিরিক্ত চাপ বা মানসিক কষ্টের জন্য সুইসাইড বা অন্যান্য অপকর্মে নিয়োজিত হয়েছে।

ভিন্ন কারণে একটি মানুষ ডিপ্রেসড বা তার মাথা ব্যাথার মত সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। সাধারণত টিনেজ বা সমবয়সী, বয়সী এসকল মানুষের মধ্যে ডিপ্রেসড মাথাব্যথা প্রবণতা বেশি থাকে।

উল্লেখিত কারণগুলো হলো- 

পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যার জন্য মানুষ নানাভাবে ডিপ্রেসড হয়ে থাকে, আর্থিক অসচ্ছলতা, বিভিন্ন ধরনের দ্বন্দ্ব, বা নির্দিষ্ট একটি বয়সে বিভিন্ন জিনিস নিয়ে ডিপ্রেশনে থাকা, সময় কোন ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলে, বিভিন্ন ধরনের মানসিক কষ্টে ভোগা, এছাড়াও শারীরিক ভাবে নানা ধরনের অসুস্থতার জন্য মাথাব্যথা হয়ে থাকে।

এগুলো থেকে মুক্তির জন্য রয়েছে নানা ধরনের উপায় ও মাধ্যম যা প্রয়োগের মাধ্যমে আমরা মাথা ব্যথা ও ডিপ্রেশন মত সমস্যা থেকে দূরে থাকতে পারি।

উপায় ও মাধ্যম-

অনিয়মিত ঘুম বা অতিরিক্ত ঘুম দুটোই আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর ।সুতরাং আমাদের উচিত একটি সময় মেইনটেইন করে সেই অনুযায়ী প্রতিদিন ঘুমানোর এবং ঘুম থেকে ওঠা।

আমাদের প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে খাবার নির্দিষ্ট সময় গ্রহণ করা উচিত। অনিয়মিত খাবার গ্রহণ করা বা অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করা দুটোই আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর এর ফলে তৈরি হতে পারে আমাদের মাথা ব্যাথার মত নানা ধরনের সমস্যা।

আমাকে প্রতিদিন নেওয়া উচিত রেগুলার একটি এক্সেসাইজ তা প্রতিদিন মেনটেন করা উচিত। সকালে মর্নিং ওয়াক বা বিভিন্ন ধরনের অনুশীলনমূলক কাজ করা উচিত।

প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে পানি 7 থেকে 8 গ্লাস পানি নিয়মিত খাওয়া উচিত , যা পরিমাণে 2 লিটার হতে পার।

স্বাস্থ্যসম্মত ফলমূল যেসব ফলমূলে ভিটামিন এ  ভিটামিন সি এটা কি ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার ফলমূল খাওয়া উচিত। সুষম খাবার যেমন ডিম ও দুধ আমাদের প্রতিদিন খাওয়া উচিত।

অতিরিক্ত মানসিক চাপ বা কোন বিষয় নিয়ে অতিরিক্ত চিন্তা এসব থেকে বিরত থাকা উচিত। জীবনে কোনো না কোনো সময় নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয় তা নিয়ে ভয় না পেয়ে নানাভাবে ভালো উপায় এর মাধ্যমে সমাধান করার চেষ্টা করা উচিত। এটি পরিবারের কোন সদস্যের সাথে আপন-মনে খুলে বলা উচিত, বা অতিরিক্ত মানসিক চাপ বা মাথা ব্যথা বা বিভিন্ন দুশ্চিন্তার কারণে মনোবিজ্ঞানী এদের মত মানুষদের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত। সময় সব কাজে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত যার ফলে মাথায় অতিরিক্ত চাপ বা কোনো দুশ্চিন্তা থাকবে না।

তৎক্ষণাৎ মাথাব্যথার জন্য মাথাব্যথা হতে পারে এমন সময় লেবুর সঙ্গে সামান্য পরিমাণ নুন মিশিয়ে খেলে তা মাথাব্যথার পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে ।এছাড়াও বিভিন্ন ফলের শরবত যেমন লেবু, আনারস, বেল ইত্যাদি ফলের শরবত আমরা প্রতিদিন খেতে পারি এটার মাধ্যমে এ ধরনের মাথা বথা থেকে দূরে থাকতে পারি।

আবার শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকতে পারে যার ফলে তার মাথা ব্যথা বা এ ধরনের সমস্যা দেখা দেয় তারা দ্রুত মাধ্যমে কোন চিকিৎসা সেবা নিয়ে থাকতে পারেন ।বর্তমানে পৃথিবীতে যেকোনো রোগের চিকিৎসা পেতে দ্রুত মাধ্যমে অনলাইন সেবা পাওয়া চায়ের মধ্যে          ই-সেবা একটি অন্যতম মাধ্যম।

ছাড়াও অনলাইনে বিভিন্ন চিকিৎসক ফ্রি চিকিৎসা দিয়ে থাকেন বা ফ্রিতে চিকিৎসা নেয়ার ব্যবস্থা করা রয়েছে আমরা এ ধরনের ডিপ্রেশন বা মাথাব্যথার জন্য তাদের কাছ থেকে উঠে সহজেই সেবা নিয়ে থাকতে পারি।

এ সকল উপায়ে ভালোভাবে প্রয়োগ করার মাধ্যমে আমরা ডিপ্রেশন বা মাথাব্যথার এধরনের রোগ থেকে মুক্ত হতে পারি।

আমাদের উচিত আমাদের শরীর ও আমাদের নিজেদের সম্পর্কে যত্নশীল হওয়া।

Comments

You must be logged in to post a comment.

লেখক সম্পর্কেঃ

Student Hope to success my vision