বিটকয়েন কি ?

বিটকয়েন আসলে কি?

1650197484-untitled-design-1.png

আমরা অনেকেই এই নামটার সাথে পরিচিত না। আমরা অনেকেই জানি না বিটকয়েন কি। কেন ব্যবহার করা হয়। কি কাজে ব্যবহার করা হয়। বিটকয়েন কোন দেশের মুদ্রার নাম ও না বিটকয়েন হল একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা। যেটা অনলাইনেই ব্যবহার হয়। অনলাইন ছাড়া ভার্চুয়াল এই মুদ্রা কোন দেশে ব্যবহার করা যায় না। যেহেতু অনলাইনে কম্পিউটারের মাধ্যমে আদান-প্রদান করা হয় তাই বিটকয়েন কে ভার্চুয়াল মুদ্রা বলে।

বিটকয়েন আসলে কোন কয়েন নয়। এটি একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা যা কম্পিউটারের মাধ্যমে আদান প্রদান করা হয়। বিটকয়েনের সাংস্কৃতিক প্রতীক হলো বিটিসি এবং এর ক্ষুদ্র একক হল সাতোশি । 

বিটকয়েন একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা। তাই এটি ইনকাম করার জন্য এই অনলাইনে সাহায্য নিতে হবে। অনলাইন ছাড়া এই মুদ্রা ইনকাম করা সম্ভব না। অনলাইনে কম্পিউটারের সাহায্যে এই মুদ্রা ইনকাম করা যায় এবং এই মুদ্রার আদান-প্রদান হয় অনলাইনের মাধ্যমে। বর্তমানে বিটকয়েন আর্ন করার জন্য অনেকগুলো ওয়েবসাইট এবং অনেকগুলো কাজের নেটওয়ার্ক তৈরি হয়েছে। সেই সাইটগুলোতে কাজ করলে এই বিটকয়েন দেওয়া হয়।

খুব অল্প সময়ে কেউ যদি অনেক বড় ধনী হতে চায় তাহলে তাকে বিটকয়েন ইনকাম করতে হবে। বর্তমান সময়ে বিটকয়েন ইনকাম করা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। বিটকয়েন থেকে বেশি ইনকাম করতে চাইলে তাকে বিটকয়েনে বিনিয়োগ করতে হবে। বর্তমান সময়ে অনেক পিটিসি নেটওয়ার্কগুলোতে বিটকয়েন দেওয়া হয়। তবে সব নেটওয়ার্কগুলোতে বিটকয়েন দেওয়া হয় না। কিছু কিছু নেটওয়ার্কগুলো বিটকয়েনের উপরে তৈরি হয়েছে। যে সাইটগুলোতে কাজ করলে বিটকয়েন দেওয়া হয়। বর্তমান বাজারে বিট কয়েনের মূল্য অনেক।

বিটকয়েন একটি ডিজিটাল মুদ্রা। এটি কোন প্রকার রাষ্ট্রীয় ব্যাংক কিংবা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাথে যুক্ত নয়। এটি সরাসরি অনলাইনে যুক্ত। এটি দেখা যায় না শুধু অনলাইনে মাধ্যমে আদান প্রদান করা হয়। এই বিটকয়েন বর্তমান সময়ে যদিও বিভিন্ন দেশে এর বৈধতা নেই। কিন্তু বর্তমানে বিভিন্ন দেশে মুদ্রাস্ফীতি ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ার কারণে বিটকয়েন বৈধতা পাচ্ছে। অনেক দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক গুলোতে এখন এই বিটকয়েনের মাধ্যমে লেনদেন করছে। বিভিন্ন দেশের মুদ্রাস্ফীতি ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ার কারণে বর্তমান বিভিন্ন দেশ এই বিটকয়েন কে প্রাধান্য দিচ্ছে এবং এর মাধ্যমে লেনদেন শুরু করেছে।

আমাদের দেশও এইদিকে পিছিয়ে নেই আমাদের দেশেও অতি শিঘ্রই চালু হতে যাচ্ছে। বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে বিটকয়েনের বৈধতা নেই আমাদের দেশের বিটকয়েন কে অবৈধ হিসেবে ধরা হয় তবে খুব শীঘ্রই আমাদের দেশের বিভিন্ন ব্যাংকগুলোতে যেমন কেন্দ্রীয় ব্যাংক রাষ্ট্রীয় ব্যাংকগুলো ব্যাংকে সরাসরি বিটকয়েনের মাধ্যমে লেনদেন করা যাবে। এতে করে আমাদের অনেক লাভ হবে। অনলাইনে আমরা বিটকয়েন ইনকাম করে আমরা সরাসরি আমাদের দেশীয় বিভিন্ন ব্যাংক গুলো থেকে সেই অর্থ উত্তোলন করতে পারব। বলে রাখা ভালো এই বিটকয়েন কে বাংলাদেশে অবৈধ করা হয়েছিল 2014 সালে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এই বিটকয়েন কে সরাসরি অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছিল।

বর্তমান বাজারে বিট কয়েনের মূল্য শুনলে আপনার চোখ কপালে উঠবে। বর্তমান সময়ে এক বিটকয়েন এর নাম 36 লক্ষ টাকা প্রায়। রাতা রাতি যদি কেউ ধনী হতে চায় তাহলে বিটকয়েন অন করতে হবে। বর্তমান সময়ে এই বিটকয়েন বিক্রি করে অনেক মানুষ বিশ্বের এক নম্বর ধনী ব্যক্তি হয়েছেন। বর্তমানে বিটকয়েনের দাম ব্যাপক হারে বেড়েই চলেছে। তবে কিছুদিন আগে এই বিটকয়েনের দাম আরো বেশি ছিল তখন অনেকেই বিটকয়েন বিক্রি করে অনেক ধনী হয়েছেন। কিন্তু যখন প্রথম এই বিটকয়েন বের হয়েছিল তখন এই মুদ্রা সম্পর্কে কেউ জানতো না এবং মুদ্রার দাম এত ছিল না।

দিন দিন এই মুদ্রা যত জনপ্রিয় হচ্ছে ততই মুদ্রার মান বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগে যখন এই মুদ্রা কেউ চিনত না। কিন্তু দিন যত যাচ্ছে এই মুদ্রার চাহিদা বাড়ছে। এ মুদ্রার মান বাড়ছে এবং বিভিন্ন দেশে সরাসরি লেনদেন করা যাচ্ছে।‌ বর্তমান সময়ে বিটকয়েনে অনেক মানুষ বিনিয়োগ করেছে। এতে তারা অনেক লাভবান হচ্ছে। কিছুদিন আগে যখন বিটকয়েনের দাম অনেক বেশি ছিল তখন অনেক মানুষ সেই কয়েন বিক্রি করতে পারে নাই শুধুমাত্র সেই বিটকয়েনের সাইটের পাসওয়ার্ড মনে না থাকার কারণে। তখন যারা যারা বিটকয়েন বিক্রি করেছিল তারা তারা অনেক ধনী হয়ে গেছে। এই বিট কয়েন বিক্রি করে অনেক মানুষ বিলিনিয়ার হয়েছে। 

বর্তমান সময়ে বিটকয়েন সম্পর্কে কমবেশি সব মানুষই জানে। বিটকয়েন থেকে যে খুব অল্প সময়ে অনেক ধনী হওয়া যায় এটাও সবাই জানতে পেরেছে কিছুদিন আগেই যখন বিটকয়েনের মূল্য হঠাৎ করেই অনেক বেশি হয়েছিল। আমাদের দেশের অনেক মানুষ বিটকয়েন বিনিয়োগ করছে সরাসরি। পৃথিবীর অনেক দেশেই এখন বিটকয়েন এর উপর সরাসরি বিনিয়োগ করে ভালো পরিমাণ অর্থ ইনকাম করছে। বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে অনেকগুলো নেটওয়ার্ক তৈরি হয়েছে যেখানে এই বিটকয়েন কেনাবেচা হয়।

Comments

You must be logged in to post a comment.

লেখক সম্পর্কেঃ